Skip to main content

Omicorn medicine found : All Details

  Omicorn medicine found : All Details   As the world worries that the omicron coronavirus variant may cause a surge of cases and weaken vaccines, drug developers have some encouraging news: Two new COVID-19 pills are coming soon, and are expected to work against all versions of the virus. Omicorn medicine found : All Details   Omicorn medicine found : All Details The Food and Drug Administration is expected to soon authorize a pill made by Merck and Ridgeback Biotherapeutics, called molnupiravir, which reduces the risk of hospitalization and death from COVID-19 by 30% if taken within five days of the onset of symptoms.   Another antiviral pill, developed by Pfizer, may perform even better. An interim analysis showed that the drug was 85% effective when taken within five days of the start of symptoms. The FDA could authorize it by year’s end.   Since the start of the pandemic, scientists have hoped for convenient options like these: pills that could be prescribed by

বাবরী মসজিদ ধ্বংসের সাথে জড়িত (RSS) আর এস এস ১০০ টি মসজিদ নির্মাণ করতেছেন l

বাবরীমসজিদ  ধ্বংসের  সাথেজড়িত (RSS) আর এস এস  ১০০ টি মসজিদ নির্মাণকরতেছেন l

 Babori Masjid

একজন RSS এর নেতা ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করলেন, এবং অন্যকেও ইসলাম গ্রহণ করার জন্য আহ্ববান করতেছেন। 



 বাবরী মসজিদ  ধ্বংসের  সাথে জড়িত (RSS) আর এস এস  ১০০ টি মসজিদ নির্মাণ করতেছেন l


banglame.com


বাবরীমসজিদ ধ্বংসের অন্যতম আরএসএস  নেতাছিলেন বলবীর সিং I বলবীর সিংহের জন্ম পানিপথের  নিকটেএকটি গ্রামে, যেখানে তাঁর বাবা দৌলত রাম, গান্ধীর অনুসারী ছিলেন, একজন স্কুল শিক্ষক। পরিবারের সাথে তিনি পরে পানীপতে চলে যান, সেখানে তিনি বালা সাহেব ঠাকরের  অনুপ্রেরণাপেয়ে শিবসেনায় যোগ দিয়েছিলেন। তিনি রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘের (আরএসএস) মতাদর্শেও অনুপ্রাণিত হয়ে পানিপথে বাবরী মসজিদ ধ্বংসের অংশগ্রহণকারী ছিলেন।







হরিয়ানারপানীপাতের শিবসেনার প্রাক্তন নেতা বলবীর সিংহ ডিসেম্বর, ১৯৯২ সালের সেই দুর্ভাগ্যজনক দিনটির কথা স্মরণ করেন যেদিন  বাবরিমসজিদ ভেঙে পড়েছিল।





পানিপথের  নিকটবর্তীএকটি ছোট্ট গ্রামে হিন্দু রাজপুত (উচ্চ বর্ণের) পরিবারে জন্মগ্রহণ করেছিলেন, ছোট্ট বেলা থেকেই বলবীর পড়াশুনায় খুবই মনোযোগী ছিলেন, বলবিরের বাবা, একজন স্কুল শিক্ষক, ভারতের অহিংসার তত্ত্বের জন্য পরিচিত ভারতের স্বাধীনতা আইকন মহাত্মা গান্ধীর অনুপ্রাণিত  ব্যক্তিছিলেন।




বলবীরতার উচ্চশিক্ষা চালিয়ে যাওয়ার জন্য গ্রাম থেকে দূর পানিপথে শহরে চলে এসেছিলেন , সেখানে তিনি আরএসএসের আয়োজিত ড্রিলগুলিতে অংশ নিতে শুরু করেছিলেন। পরে তিনি শিবসেনায় যোগ দেন।


বলবীরসিংহ বলেছিলেন যে তাঁর বন্ধুমোহাম্মদ উমর, (পূর্বের নাম যুগেন্দ্র পাল ) এর সাথে তিনিমসজিদটি ভেঙে অযোধ্যাতে শ্রী রাম মন্দির নির্মাণের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। আজ, দু'জন নিজেরপাপ থেকে নিজেকে শুদ্ধ করার প্রয়াসে 00 টি মসজিদ  তৈরী করার প্রতুশ্রুতি পূরণ করতেছেন





ডিসেম্বর, ১৯৯২ সালে বলবীর সিং করণীয় সেনাতে যোগ দেন, এবং সেই সেনার সহযোগে বলবীর সিং তার সহযোগী দেরকে নিয়ে তিনি প্রথম ব্যক্তি যিনি বাবরী মসজিদএর উপর আক্রমন করেন 





বলবীরসিং বলেছিলেন,যেদিন আমরা বাবরী মসজিদ ভাংতেছিলাম  "আমরাআশঙ্কা করেছি যে সেনাবাহিনী প্রচুরপরিমাণে মোতায়েন করা হতে পারে আমাদের নিরাপত্তার জন্য তবে স্থলভাগেকোনওরকম নিরাপত্তা ছিল না, যা আমাদের উত্সাহদিয়েছে এবং আমরা সেদিন মসজিদটি ভেঙে দেওয়ার জন্য মানসিকভাবে প্রস্তুত ছিলাম," তার পরে আমরা বাবরী মসজিদ ভেঙে দিলাম  l




বলবীরসিং তার সেনাপতি, পানিপথের অনেক আরএসএস এবং কর সেবকদের সাথেকোদাল আর  পিক্যাক্সদিয়ে বাবরী মসজিদের গম্বুজটি ভেঙে ফেলেছিলেন।






বলবীরসিং বলেছিলেন, "আমি যখন নিজের শহর পানিপথ  পৌঁছেছিলামতখন লোকেরা আমাকে বীরের স্বাগত জানায়।" তা দেখে আমিখুবেই খুশি ছিলাম l




বাবরীমসজিদ ধ্বংসের পর থেকেই বলবীরসিং সর্বদা আতংকিত থাকতেন, এদিকে প্রতিবেশীরা বলবীর কে হিরো মনেকরতেন, কিন্তু বলবীর সিং দিন দিন মানসিক দীঘ  দিয়েরোগাক্রান্ত হয়ে যাচ্ছিলেন  ধীরেধীরে বলবীর সিং পাগলের মতো হয়ে যাচ্ছিলেন  l




এইধ্বংসযজ্ঞের পরপরই বলবীরের সাথে আরও এক কর সেবক  (হিন্দুস্বেচ্ছাসেবীরা যারা মসজিদটি ভেঙে দিয়েছেন) যোগেন্দ্র পাল গভীর অন্তর্নিবেশে চলে গিয়েছিলেন। ছয় মাস পরে বলবীর সিং এবং যোগেন্দ্র পাল  ইসলামগ্রহণ করে নেন বলবীর সিংএর বর্তমান নাম মুহাম্মদ আমির  মোহাম্মদআমির ইতিমধ্যে 90 টি মসজিদ নির্মাণকরেছেন। তিনি এই ধ্বংসযজ্ঞে অংশগ্রহনেরজন্য ১০০  টিমসজিদ নির্মাণের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন।


বলবীরসিং তাঁর যাত্রার কথা স্মরণ করে বলেছিলেন যে তিনি ধ্বংসেরপরপরই আত্ম-পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিলেন।যোগেন্দ্র পালের মাধ্যমে আমি মাওলানা কালেম সিদ্দিকীর সংস্পর্শে এসেছি। তার আচরণ এবং বোঝার পদ্ধতি আমাকে আত্ম-অনুসন্ধানে পরিচালিত করেছিল। ১৯৩৩ সালের জুন আমিইসলাম গ্রহণ করি, ”তিনি বলেছিলেন।

মাওলানাকালেম সিদ্দিকী হলেন একজন ভারতীয় আলেম, যিনি উত্তর প্রদেশ রাজ্যের মুজাফফরনগর জেলার খাতৌলি তহসিলের ফুলত গ্রামে একটি ইসলামিক শিক্ষাকেন্দ্র পরিচালনা করেন।



রাজপুতপরিবারে  জন্মগ্রহণকারীবলবীর সিং বলেছিলেন, "আমি বুঝতে পেরেছিলাম যে আমি আইনহাতে নিয়েছিলাম এবং ভারতের সংবিধান লঙ্ঘন করেছি। আমি দোষী, আমি ইসলাম গ্রহণ করেছি এবং বলবীর সিং থেকে আমার নাম পরিবর্তন করে মোহাম্মদ আমির রেখেছি।"






মুহাম্মদআমির একজন  মুসলিমমহিলার সাথে বিবাহিত এবং ইসলামের শিক্ষার প্রচারের জন্য একটি স্কুল পরিচালনা করেন মোহাম্মদ আমির মোহাম্মদ উমর মিলে পর্যন্ত ৯০টি মসজিদ নির্মাণ করেছেন।





মুহাম্মদআমির জানান যে তিনি সংশ্লিষ্টকর্তৃপক্ষের সামনে সাক্ষ্য দিতে প্রস্তুত এবং যে কোনও শাস্তিরমুখোমুখি হতে প্রস্তুত l








আনাদোলুএজেন্সির সাথে আলাপকালে, বলবীর সিং এখন আমির বলেছিলেন, ২৮ বছর আগে, তিনি মসজিদটি ভেঙে উত্সাহের সাথে যোগ দেওয়ার সময় তিনি ঘৃণার শিকার হয়েছিলেন।





আমিবাবরি মসজিদের জায়গায় ভগবান রামের নামে মন্দিরটি তৈরির প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলাম। ভুল বুঝতে পেরে আমি ১০০  টিমসজিদ নির্মাণ করে আমার পাপ ধুয়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছি, "তিনি বলেছিলেন।




সমস্তহিন্দু উগ্রপন্থী সংগঠনের পৃষ্ঠপোষক, রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘের (আরএসএস) দ্বারা অনুপ্রাণিত হয়ে বলবীর সিংহ রাজনৈতিক দল শিবসেনার সদস্যছিলেন।




"আমিজাতীয় রাজধানী দিল্লি সংলগ্ন হরিয়ানা রাজ্যের পানিপথ  শহরেনিয়মিত আরএসএসের ড্রিলস এবং প্রশিক্ষণ কর্মসূচিতে যোগ দিতাম," তিনি বলেছিলেন। ভারতের বর্তমান ক্ষমতাসীন ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) আরএসএসের রাজনৈতিক অঙ্গ হিসাবে বিশ্বাস করা হয়।






মুহাম্মদআমির  এখনপানিপথ  শহরথেকে হায়দরাবাদের গভীর দক্ষিণে পাড়ি জমান। তিনি দাবি করেছেন যে বিগত ২৮বছর ধরে তিনি পুরো ভারতে ইতিমধ্যে ৯০  টিমসজিদ নির্মাণ বা মেরামত করেছেন।


বলবীর সিং সম্বন্দে আরো বিস্তারিত জানার জন্য ইন্ডিয়া টিভির  এই খবর পড়তে পারেন ক্লিক করুন

আশা করি এই আর্টিকেল পড়ে আপনাদের ভালো লেগেচে।  আপনাদের মতামত নিচের কমেন্ট বক্সে অবশ্য জানাবেন।



আরও পড়ুন..

Coronavirus পুরো বিশ্বে সাম্প্রদায়িক রঙ পেয়েছে। সংযুক্ত আরব আমিরাতে মুসলিম বিরোধী পোস্টের জন্য  রাজকন্যাও হুঁশিয়ারি দিয়েছে।


বাবরি মসজিদের ইতিহাস

বাবরি মসজিদ মামলা

বাবরি মসজিদ নির্মিত

বাবরি মসজিদ অযোধ্যা

বাবরি মসজিদ ধ্বংস

বাবরি মসজিদ ফটো

বাবরি মসজিদ অলৌকিক ঘটনা

গুগল ব্লোগ্গিং করে মাসিক আয় করুন ৫০,০০০ টাকা ! সম্পূর্ণ বিস্তারিত

লকডাউনের সময় 150 উপায়ে ঘরে বসে অর্থ উপার্জন করুন

কোয়ারানটিনে হোটেলেসেক্স! যৌনকেচ্ছাই ছড়াল করোনা...

'বিকাশ ভুল ছিল,দেশের আবর্জনা সাফ হলো ! ভালোই হলো

লকডাউনে যারা বেকার হয়েচেন তাদের জন্যে ৫০ হাজার চাকরিl আজকেই এপ্লাই করুন ! ফোন এবং ঠিকানা বিস্তারিত জানুন l

সুখবর, সহস্রাধীক সরকারি চাকরী শীঘ্রই এপলাই করুন।

আসতেসে ঘূর্ণি বাতাস 'আমফান'পশ্চিম বঙ্গ এবং আসামের কোন জিলায় জারি হয়েছে সতর্কবাণী?

নগদ অর্থ উপার্জন করতে চান?? 60 টি উপায়



Comments

Popular posts from this blog

The Great Khali Bangla Biography দ্য গ্রেট খালি বাংলা জীবনী

The Great Khali Bangla Biography  দ্য   গ্রেট   খালি   বাংলা    জীবনী   একজন দিনমজুর করা ছেলে কিভাবে পুরোবিশ্বে  দ্য   গ্রেট   খালি নাম খ্যাতি  করলেন  হিমাচল প্রদেশের সিরমৌর জেলায় দলীপ সিং রানা নামের এক যুবক প্রায় নিজের ঘরে খাবার নিয়ে জগড়া করতো।  আর কেনই বা জগড়া করতোনা কারণ দিন দিন তার শরীরের যে আকার বৃদ্ধি হচ্ছিল, পরিবারে যে খাবার তাকে দেওয়া হতো সেই খাবার দিয়ে কখনো তার ক্ষুদা মিটানো সম্ভব চিল  না।   সে একাই এতটুকু খেয়ে নিতো যে খাবার তার ৭ ভাই বোন মিলে খেতে পারতো।  দলীপ সিং এর বাবা পেশায় একজন দিনমজুর ছিলেন , তাই তিনি যথারিতি দলীপ সিঙ্গের খাবারের বেবস্তা করতে পারতেন না।   banglame.the-great-khali-biography একসময় কঠোর পরিশ্রম ও জীবনযাপনকারী   The Great Khali    আজ এত ধনী হয়ে উঠেছে যে তিনি নিজের গ্রামের উন্নয়নের জন্য অর্থ ব্যয় করেন। হ্যাঁ , কিশোরের দিনগুলিতে তাকে তার ভাই এবং বাবার সাথে কঠোর পরিশ্রম করতে হয়েছিল। যাতে তারা তাদের পেট   ভরে দুবেলা খেতে    পারে। কিন্তু একদিন তার ভাগ্য পালা নিল , তার জগত বদলে গেল।   The Great Khali    সাফল্যের গল্প কো

বাংলা প্রেরণামূলক ছোট গল্প

বাংলা প্রেরণামূলক ছোট গল্প আমাদের সবার   জীবনে সুখ দুঃখ কষ্ট , বেদনা থাকে , সিনেমার অর্ধনগ্ন নায়িকাদের   ছবি গুলোর জন্য ইন্টারনেট অনুসন্ধান করার পরিবর্তে বাংলা প্রেরণামূলক ছোট গল্প গুলো পড়ুন । যখন জীবন আপনাকে কোনো সমস্যায় ফেলেছে , তখন এই অনুপ্রেরণামূলক ছোট গল্প গুলিতে ফিরে আসুন।   সোবেরানো   ও   তার   মেয়ে ,  সহকারী   কমিশনার   জ্যোতি সেগুলি কেবল আত্মার জন্য একটি ইন্টারনেট আলিঙ্গন পাওয়ার মতো পড়ছে তা নয় , আপনার জন্য একটি ধারণা বা কোনও পরিবর্তনের জন্ম দিতে পারে। পড়ুন এবং ভালো লাগলে শেয়ার   করতে ভুলবেন না।   বাংলা জীবন সম্পর্কে সেরা প্রেরণামূলক ছোট গল্প   1. আসামের তিনসুকিয়া জেলায় ঘটে যাওয়া একটি বাস্তব জীবনের গল্প।   সোবেরানো নামে এক সবজি বিক্রেতা তার সবজির ঠেলা ঠেলে বাড়ি যাচ্ছিলেন   , হঠাৎ তিনি ঝোপঝাড়ের মধ্যে   কাঁদতে থাকা এক   বাচ্চার শব্দ শুনেছেন সোবেরানো ঝোপের কাছে গিয়ে দেখলেন একটি শিশু আবর্জনার স্তূপে শুয়ে কাঁদছে।   সোবেরানো চারপাশে তাকাচ্ছিল , কিছুক্ষণ

মিয়া খলিফা MIYA KHALIFA

MIYA KHALIFA মিয়া খলিফা   মিয়া খলিফার জীবনের অজানা অনেক তথ্য।    মিয়া খলিফার উপার্জন কত? আরও অনেক তথ্য।  mia-khalifa-bangla